ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে অন্যতম রক্তক্ষয়ী দিন গেছে বৃহস্পতিবার। এ দিন সব মিলিয়ে দেশটিতে অন্তত ৪০ জন আন্দোলনকারী নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৬০ জন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, গত মাসে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে অন্যতম রক্তাক্ত দিন গেছে বৃহস্পতিবার। এ দিন অন্তত ৪০ জন আন্দোলনকারী নিহত হয়েছেন।

এর মধ্যে ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নাসিরিয়াহতে একটি ব্রিজ খালি করতে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি ছোড়ে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এতে প্রায় ২৫ জন নিহত হন এবং আহত হন আরও প্রায় ৪০ জন।

শহরটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সরকারবিরোধী মিছিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে ২৫ জন নিহত হওয়ার পর শহরজুড়ে কারফিউ জারি করা হয়েছে। এছাড়া বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আনতে এরই মধ্যে সামরিক এবং বেসামরিক লোকদের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে ‘ক্রাইসিস সেল’।

একই দিনে বাগদাদে আরও ৪ আন্দোলনকারী নিহত হন। এছাড়া নাজাফ শহরে নিহত হন ১০ জন। এই শহরেই ইরানের দূতাবাস জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছিল। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা জানিয়েছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতেই এই আন্দোলনকারীরা নিহত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, অক্টোবরের ১ তারিখ চাকরি, দুর্নীতি বন্ধ এবং আরও উন্নত জনসেবার দাবিতে বাগদাদে সরকারবিরোধী আন্দোলন শুরু হয়। এরপর তা দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে পড়ে। ইরাকের এই সরকারবিরোধী বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ৩৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন।