ক’দিন আগেই দেশে অনুষ্ঠিত হলো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ও মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ নামে দুটি সুন্দরী প্রতিযোগিতা। কেবল অবিবাহিত মেয়েরাই এ প্রতিযোগিতা অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন। এবার বিবাহিত নারীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘মিসেস বাংলাদেশ মিলেনিয়াম ইউনিভার্স’ নামের আরেকটি সুন্দরী খোঁজার আয়োজন। 

তবে নারীদের নিয়ে সারা বিশ্বে প্রায়ই নিয়মিত নানাবিধ প্রতিযোগিতার আয়োজন হয়ে থাকে। এর মাঝে নারীর রূপ ও সৌন্দর্য্য নিয়েই সবচেয়ে বেশি প্রতিযোগিতা হয়। বাহ্যিক সৌন্দর্য্যের বাইরেও নারীর এক বিশেষ রুপ রয়েছে যা তাকে মাতা, দেবী, যোদ্ধা কিংবা নেত্রীর মতো বিভিন্নরুপে হাজির করেছে এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে। এই প্রতিযোগিতায় এমন বিবেচনাতেই বের করা হবে অন্যন্য এক সুন্দরী নারীকে। 

মিসেস মিলেনিয়াম ইউনিভার্স মালয়েশিয়াতে স্থাপিত একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতা আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান। যারা প্রতি বছর মালয়েশিয়াতে এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে বিবাহিত ও অবিবাহিতদের জন্য সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। 

বিগত ৯ মে ২০১৯ তারিখে কুয়ালালামপুরে ‘মিস ও মিসেস মিলেনিয়াম ইউনিভার্স’ অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে ‘মিসেস বাংলাদেশ মিলেনিয়াম ইউনিভার্স’ হিসেবে বাংলাদেশের নাহিদ আহমেদ সুমিকো অংশগ্রহণ করেন এবং ‘মোস্ট আউটস্ট্যান্ডিং ওম্যান’ এবং ‘মোস্ট পপুলারিটি’ খেতাবে সম্মানিত হন। এর ধারাবাহিকতায় মিসেস নাহিদ আহমেদ সুমিকোকে মিলেনিয়াম ইউনিভার্সের বাংলাদেশ প্রতিনিধি হিসাবে নির্বাচন করা হয় এবং তার উদ্যোগে বাংলাদেশে একটি আন্তর্জাতিক মানের সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। যার নাম ঠিক করা হয়েছে ‌‘মিসেস বাংলাদেশ মিলেনিয়াম ইউনিভার্স ২০২০’। এখানে বিবাহিত, ডিভোর্সি, সিঙ্গেল মাদাররা অংশ নিতে পারছেন। এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে ২৯ অক্টোবর থেকে। 

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ২৯ অক্টোবর মঙ্গলবার রাজধানীর রাওয়া ক্লাবে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গার্নিস প্যারেসের ব্র‍্যান্ড ম্যানেজার রাহাত হোসেন চৌধুরী, মিলেনিয়াম ইউনিভার্স বাংলাদেশ এর ডিরেক্টর মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম, মাই ফুডস লিমিটেডের চেয়ারম্যান সৈয়দ তাজওয়ার আজম, ম্যানেজিং ডিরেক্টর কর্ণেল সৈয়দ আরিফুল আজম (অব.), এটিএন বাংলার অনুষ্ঠান উপদেষ্টা মোহন খান, প্রশাসন, বিক্রয় ও বিপণন মীর মোতাহার হাসান, এটিএন ইভেন্টসের ডিরেক্টর মাসুদুর রহমান, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির সহসভাপতি সৈকত সালাহউদ্দিন, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আবিদা নাসরিন কলিসহ আরও অনেকেই। 

সবার মধ্যমনি হয়ে ছিলেন মিসেস বাংলাদেশ মিলেনিয়াম ইউনিভার্স নাহিদ আহমেদ সুমিকো। অনুষ্ঠানে বক্তারা জানান, ইতোমধ্যেই অনলাইনে প্রায় ৬ হাজার প্রতিযোগীর মধ্যে ১১০ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে এবং ২৯ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় এর প্রথম অডিশন রাউন্ড। এদিন ২৮ জনকে নির্বাচন করা হয়েছে। এখান থেকে সেরা বিজয়ী ফাইনাল রাউন্ডে অংশ নেবেন। ফাইনাল রাউন্ড অনুষ্ঠিত হবে মালয়েশিয়াতে, ২০২০ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি। 

মিসেস নাহিদ আহমেদ সুমিকো বলেন, 'দেশের নারীর সৌন্দর্য্যকে বিশ্বময় ছড়িয়ে দিতেই এই প্রয়াস।প্রতিযোগিতায় একটু ভিন্নমাত্রা আনতে 'সেভ আওয়ার মাদার আর্থ’ স্লোগানে এর মূল বিষয়বস্তু ঠিক করা হয়েছে পরিবেশ রক্ষা। পৃথিবীর প্রতকূল পরিবেশ উন্নয়নে নারীর ভূমিকাকে শক্তিশালী করতে আমাদের এই প্লাটফর্ম কাজ করবে।'

মিসেস বাংলাদেশ মিলেনিয়াম ইউনিভার্সের আয়োজক ‘সুমিকো স্পার্ক এন্টারটেইনমেন্ট’ এবং স্পন্সর ‘মাই ফুডস লিমিটেড’। এর মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে এটিএন বাংলা। 

প্রসঙ্গত, মিসেস নাহিদ আহমেদ সুমিকো সম্প্রতি গ্লোবাল ইন্টারন্যশনাল সুন্দরী প্রতিযোগিতার বিচারক হিসাবেও নির্বাচিত হন। ব্যক্তিজীবনে চার সন্তানের জননী মিসেস নাহিদ আহমেদ সুমিকো একজন সফল উদ্যোক্তা। তিনি ‘সুমিকো স্পার্ক এন্টারটেইনমেন্ট’ -এর প্রতিষ্ঠাতা, যেটি মালয়েশিয়ায় অবস্থিত। রেস্টুরেন্ট, ফ্যাশন হাউজ ‘ফ্যাশন ফ্লেভার’ ও ‘ফ্লেভার ইন’-এরও প্রতিষ্ঠাতা তিনি।