বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টাকে প্রতিহত করতে পাড়ায় মহল্লায় চৌদ্দ দল প্রস্তুত থাকবে বলে জানিয়েছেন চৌদ্দ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

সোমবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনির্য়াস ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে ঢাকার সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। 

নাসিম বলেন, “বিএনপি হুমকি দেয় একদফা আন্দোলন করবে, সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে আন্দোলন করবে তারা। ঘোষনা দিয়ে বলেছেন ৫ তারিখের রায় যদি উল্লাটা পাল্লাটা হয় একদফা আন্দোলন করবে। 

“দেখেন কত বড় নিলর্জ ব্যপার, যদি রায় তাদের পক্ষে না যায় সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে আন্দোলন করবে। রায় কি হবে না হবে সেটাতো সুপ্রিম কোর্ট জানে। তারা কি ভাবে বললেন ৫ তারিখে আমরা আন্দোলনে নামব একদফা আন্দোলন করব।

“গত ১৫ বছর ধরেই তারা আন্দোলনের হুঙ্কার দিয়ে আসছে, বিএনপির যারা হুংকার দেয় তাদের স্বরণ করে দিতে চাই, এ হুংকার দিয়ে কোন লাভ হবে না। আইন আইনের মত চলবে। বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে, আদালত যে রায় দিবে এ ব্যপারে আপনাদের কোন কথা নাই, কোন হস্তক্ষেপ নাই, তিনি মুক্তি পাবেন কি পাবেন না সেটা সুপ্রিমকোর্ট  বিচার করবে। আমাদের তো বলার কিছু নাই, আমরা হস্তক্ষেপ করি নাই কখনোও।”

“ঘরে বসে হুংকার দেন, কখনো দেখলাম না সাহস করে মাঠে এসে কিছু করেছেন। অথচ আমরা সেই দূসময়ের সময় রাতবর লাড়াই করে আন্দোলন করেছিলাম। আওয়ামী লীগের ইতিহাস হচ্ছে আন্দোলন সংগ্রামের ইতিহাস। আর আপনাদের হুংকার হচ্ছে প্রেস ক্লাবের চত্তেরে মধ্যে আর ঘরে বসে। 

“যদি কোন নৈরাজ্য সৃষ্টি করার চেষ্টা করেন, মনে রাখবেন ১৪ দলকে নিয়ে, আওয়ামী লীগকে নিয়ে মাঠে ময়দানে পাড়া মহল্লায় প্রতিরোধ গড়ে তুলব আমরা। কাজেই চক্রান্ত করে লাভ হবে না । তাই বলি আইনের পক্ষে থাকেন , বড় আইনজীবি নিয়োগ করে খালেদা জিযার মুক্তির জন্য চেষ্টা করেন। আইনের পথে থাকেন।”

কোন অশুভ শক্তি মাথাচাড়া দিলে প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, “হুংকার দিচ্ছেনতো, হুংকার দেওয়া এখন অভ্যসে পরিনত হয়ে গেছে, প্রতিদিনই হুংকার দেন। পার্লামেন্টে গেছেন, সেখানে যত কথা বলার বলেন কিন্তু জ্বালাও পড়াও আবার করবেন, নৈরাজ্য করবেন, হুমকি দিবেন এ হুমকিতে কোন কাজ হবে না। ফাঁকা মাঠে ফাঁকা আওয়াজ তুলে কোন লাভ হবে না।

“কোন অশুভ শক্তি যদি মাথা চারা দিতে চাইলে আপনারা মাঠে থেকে প্রতিহত করবেন।”