চারদিকে যখন পিঙ্ক টেস্ট নিয়ে মাতামাতি। তখনই খবরের শিরোনামে সাকিব আল হাসান। খানিকটা চমকে দিয়েই নির্বাসনে থাকাকালীন তিনি হাজির হন কলকাতায়। অনেকটা নীরবে নিভৃতেই সময় কাটাচ্ছেন সেখানে।

অথচ শুক্রবার (২২ নভেম্বর) ঐতিহাসিক ইডেন টেস্টে এই সাকিবকেই দেখা যেত বিরাট কোহলির সঙ্গে টস করতে। কিন্তু জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েও গোপন করায় এই স্বাদ থেকে বঞ্চিত হতে হলো দেশসেরা এই অলরাউন্ডারকে। তারপরও ইডেন টেস্টের সুবাসটা নিয়েছেন সাকিব!

গোলাপি টেস্টের প্রথম দিন কলকাতায় অনেকটা নিঃশব্দে, চুপিসারে পা রাখেন সাকিব। কাউকে কিছু জানতে দেননি। যা খবর, একদিনের ঝটিকা সফরে কলকাতায় যান সাকিব। শনিবার দিনটা ভারতেই থাকবেন। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে রোববার (২৪ নভেম্বর) তার ঢাকা ফেরার কথা রয়েছে।

যতটুকু যা শোনা যাচ্ছে, সাকিব নিজের ব‌্যবসায়িক কাজে কলকাতায় যান। শনিবার (২৩ নভেম্বর) গোটা দিন ধরে তার নানা রকম মিটিং আছে সেখানে। টিম হোটেলেও সাকিব ওঠেননি। আছেন বাইপাসের ধারের একটি হোটেলে।

এ দিকে সাকিবের ঘনিষ্ঠ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, আইসিসি’র নিষেধাজ্ঞার মধ্যে থাকায় ইডেনে খেলা দেখতে যাওয়া কিংবা টিমের সঙ্গে দেখা করা সম্ভব কি না, এখনও নিশ্চিত নয়। যদি সম্ভব হয়, তাহলে শনিবার ইডেনে দেখা গেলেও যেতে পারে।

উল্লেখ্য, ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব গোপন করার আপাতত এক বছরের জন্য সব ধরণের ক্রিকেটের বাহিরে আছেন সাকিব। তবে এর আগে লম্বা একটা সময় ব্যাটে-বলে বাংলাদেশ ক্রিকেটে আলো ছড়িয়েছেন তিনি। দেশের জার্সি গায়ে ২২ গজ মাতিয়েছেন।

২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর এখন পর্যন্ত খেলেছেন ২০৬টি ওয়ানডে ম্যাচ। যেখানে সাকিব রান করেছেন ৬ হাজার ৩২৩। বল হাতে নিয়েছেন ২৬০ উইকেট।

ওয়ানডের পাশাপাশি ক্রিকেটের বাকি দুই ফরম্যাট টি২০ ও টেস্টেও সাকিব সমানভাবে উজ্জ্বল। ৫৬ টেস্টে অংশ নিয়ে করেছেন তিন হাজারের বেশি রান। পাশাপাশি ঝুলিতে পুরেছেন ২১০ উইকেট। আর টি২০’তে ৭৬ ম্যাচ খেলা সাকিবের রান ১ হাজার ৮৯৪। বিপরীতে উইকেট শিকার করেছেন ৯২টি।