মাদারীপুরে পদ্মার পাড়ে কাঁঠালবাড়িতেই হবে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের উৎসব। এতে ১০ লাখের বেশি নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সমাগমের প্রত্যাশা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিম। 

বৃহস্পতিবার ( ২ জুন) সেতু উদ্বোধনের পর  জনসভা সফল করতে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল পদ্মা সেতুর কাঠালবাড়ী অংশে জনসভা স্থলে আসেন। এ সময় সমাবেশ স্থল ঘুরে সাংবাদিকদের এ সব তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী উদ্যোগের কারনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চল বাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নপূরণ হতে যাচ্ছে। এই স্বপ্নপূরণে কোটি কোটি মানুষ অপেক্ষার প্রহর গুনছে।

এর আগে, গনমাধ্যমে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের বিষয়ে শরীয়তপুর ১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু বলেন,  এদেশের সাড়ে সাত কোটি বাঙালির মুখে হাসি ফোটানোর জন্য, সোনার বাংলা গড়ার যে স্বপ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেখিয়েছিলেন, পিতার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে চলেছেন তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । 

দক্ষিণ বাংলা ও উত্তর বাংলার মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থার যে স্বপ্ন জাতির পিতা দেখিয়েছেন তা তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছেন। পদ্মা সেতু শুধু একটি সেতুই নয় এটি দক্ষিণ বাংলার মানুষের স্বপ্ন, ধ্যানজ্ঞান, আরাধনা। এটি দুই বাংলার মধ্যে বন্ধন তৈরি করেছে বলেন জানান তিনি।


তিনি আর ও বলেন, এ পদ্মা সেতুর যোগাযোগ ব্যবস্থা অর্থনৈতিকভাবে উন্নয়ন ঘটাবে, আর এই সেতু তৈরির ফলে সবচেয়ে বড় লাভবান হবে শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার মানুষ।

এ সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আফজাল হোসেন, মির্জা আজম ও এস এম কামাল হোসেন,  জাতীয় সংসদের চীফ হুইফ নূর-ই আলম চৌধুরী এমপি, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, শরিয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, জাজিরা উপজেলা চেয়ারম্যান মোবারক শিকদারসহ  জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও একাধিক সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।