শুক্রবার বাদ জুম্মা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ শেখ আবু নাসের-এর স্ত্রী শেখ রাজিয়া নাসের-এর কুলখানি সম্পূর্ণ হয়।

এ উপলক্ষে দিনব্যাপী কোরআন খতমসহ নানা কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। বাদ জুম্মা টুঙ্গিপাড়া, বাগেরহাট ও খুলনায় বিশেষ দোয়া মাহফিল ও মিলাদের আয়োজন করা হয়। এ ছাড়াও দুস্থ ও এতিমদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। মরহুমার পরিবারের পক্ষ থেকে শেখ রাজিয়া নাসেরসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট-এর সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া চাওয়া হয়েছে।

এছাড়াও শুক্রবার বাদ জুম্মা বনানী কবরস্থানে মরহুমার পরিবারের পক্ষ থেকে কবর জিয়ারত করেন মরহুমার নাতি শেখ সারহান নাসের তন্ময় সহ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় নেত্রীবৃন্দ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার চাচী ও বাগেরহাট-১ আসনের এমপি শেখ হেলাল উদ্দিন, খুলনা-২ আসনের এমপি শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল-এর মা এবং বাগেরহাট-২ আসনের এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময়ের দাদি শেখ রাজিয়া নাসের গত সোমবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে বাধ্যর্কজনিত কারণে মারা যান (ইন্নালিল্লাহি .... রাজিউন)। মঙ্গলবার তাঁকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয় যেখানে শায়িত আছেন মরহুমার স্বামীসহ জাতির পিতার পরিবারের ১৫ আগস্ট-এর অন্য শহিদরা।

১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগ সভাপতি নির্বাচিত হয়ে শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর তাঁর চাচী রাজিয়া নাসের তাঁকে মাতৃস্নেহে আগলে রাখেন। তিনি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অভিভাবক।