বেসরকারি খাতে বিনিয়োগের উৎস হিসেবে শক্তিশালী ঋণনির্ভর বা বন্ডবাজার তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। 

বুধবার (২৩ জুন) ‘টেকসই বেসরকারি খাত’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। বিশ্ব ব্যাংকের সহযোগী সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) অনলাইনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে ব্যবসায়ী, আমলা ও উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশের পুঁজিবাজার ইক্যুইটি-ভিত্তিক বা কোম্পানি-নির্ভর বাজার। কিন্তু অর্থায়নের উৎস হিসেবে পুঁজিবাজার ব্যবহৃত হয় না।’ তিনি উল্লেখ করেন, বন্ডের মাধ্যমে কীভাবে বিনিয়োগের সুযোগ তৈরি করা যায়, তা নিয়ে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা কাজ করছে। শিগগিরই একটি শক্তিশালী বন্ডের বাজার পাওয়া যাবে বলে মনে করেন তিনি। তার মতে, করপোরেট খাতের ব্যালেন্স শিটে স্বচ্ছতা আনা খুবই জরুরি। এ ক্ষেত্রে সঠিক নিরীক্ষা প্রতিবেদনের তৈরি করতে হবে। তিনি বলেন, ‘করোনার প্রেক্ষাপটেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ভালো করেছে। এতে অর্থনীতির সক্ষমতা বেড়েছে, তা প্রকাশ পেয়েছে।’

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইএফসির আঞ্চলিক অর্থনীতিবিদ জুলিয়া মিরুনোভা। তিনি বলেন, ‘বেসরকারি খাতের জন্য দীর্ঘ মেয়াদে বিনিয়োগ প্রয়োজন। এ জন্য বন্ডবাজার উন্নয়নে সংস্কার প্রয়োজন।’ এ ছাড়া তিনি আর্থিক খাত, বিশেষ করে ব্যাংক খাতে করপোরেট সুশাসন প্রতিষ্ঠার ওপর জোর দেন।

অনুষ্ঠানে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান খান চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশের করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোতে দেশি–বিদেশি সূত্র থেকে অর্থায়নের সুযোগ বাড়ছে। এ দেশের করপোরেট সংস্কৃতি শক্তিশালী হচ্ছে, সেই বার্তাই প্রদান করছে।’ তিনি বলেন, ‘অর্থায়নের খরচ কমলে (সুদ কম হলে) চীন ও ভিয়েতনামের মতো দেশের প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে পারবো।’ তিনি জানান, একটি কোম্পানির জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো অর্থায়ন। প্রতিষ্ঠানটি কত সহজে ঋণ পাচ্ছে, ঋণের বিপরীতে খরচ কত।