তৃণমূলের কর্মকাণ্ডকে গতিশীল করার লক্ষ্যে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিটি জেলার নেতাদের সঙ্গে সাংগঠনিক সভা করবেন দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দলের নেতাকর্মীদের উৎসাহ যোগাতে ও দলের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন নির্দেশনা দিতে এ সাংগঠনিক সভা অনুষ্ঠিত হবে। দেশের প্রতিটি জেলায় দলের নেতাকর্মীদের সাথে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে এ বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। 

জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রচার, কর্মীদের চাঙ্গা করে সাংগঠনিক গতি বাড়ানো, জামাত শিবিরের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া, দলের সুনাম ক্ষুণ্ণ করা নেতা কর্মীদের বিভিন্ন অপকর্মের বিষয়ে কঠোর বার্তা প্রদান ও করোনা ভাইরাসের সংক্রমন রোধে সতর্ক বার্তা সহ বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করবেন সভানেত্রী।

এ ছাড়া দলের নেতারা বিভিন্ন জেলায় সাংগঠনিক সফরে নামবেন বলেও জানা গেছে। দেশের আট বিভাগের জন্য ৮টি সাংগঠনিক টিম করে দ্রুতই সাংগঠনিক সফর করবেন আওয়ামী লীগ নেতারা। 

করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে দীর্ঘ ৫ মাস সাংগঠনিক কোনও কার্যক্রম করতে পারেনি আওয়ামী লীগ। তাই এবার সীমিত পর্যায়ে আবারো সাংগঠনিক সফর শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন দলীয় সভাপতি। অসমাপ্ত জেলাগুলোর সম্মেলন এবং দলকে ঐক্যবদ্ধ করাই এর মুল লক্ষ্য 

বলে দলীয় সুত্রে জানিয়েছে।

এ বিষয়ে আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহার উদ্দিন নাসিম বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনা পরিস্থিতিতে সারাদেশে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারদের সাথে সভা করা হচ্ছে রীতিমত। সেখানে উপজেলা চেয়ারম্যান, মেম্বাররাও থাকে। তেমনি আমাদের দলের  সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে বিভিন্ন জেলার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন ও দলকে আরও গতিশীল করার লক্ষে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেবেন।