বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দুই বছরের মেয়াদ শেষ। আগামী নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়নি এখনো। তার আগেই সমিতির সভাপতি পদে লড়বেন বলে ঘোষণা দিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী। রোববার দুপুরে মুঠোফোনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি।

চলতি কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন মৌসুমী। নির্বাচিত হওয়ার তিন মাসের মাথায় ২০১৭ সালের ৩ জুলাই তিনি পদত্যাগ করেন। এবার তিনি সভাপতি প্রার্থী হচ্ছেন। আর এ নিয়ে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ইতিহাসে এবারই প্রথম একজন নারী সভাপতি প্রার্থী হচ্ছেন। মৌসুমী বলেন, ‘সবার অনুরোধেই প্রার্থী হতে যাচ্ছি। আমারও আগ্রহ ছিল। এই জায়গাটাতে এসে চলচ্চিত্র, চলচ্চিত্রশিল্পীদের জন্য নতুন কিছু করতে চাই।

তিনি আরও বলেন, ‘আজ রাজ্জাক আঙ্কেল নেই। গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি তাঁকে। এ ছাড়া ফারুক ভাই, সোহেল রানা ভাই, আলমগীর ভাই, উজ্জ্বল ভাই, কাঞ্চন ভাই, রুবেল ভাই, কবরী আপা, সুচন্দা আপা, ববিতা আপা, রোজিনা আপা, চম্পা আপাসহ জ্যেষ্ঠ গুণী শিল্পীদের কাছে যাব। তাঁদের আশীর্বাদ নিয়েই মাঠে নামব।

সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন না হওয়া, কখনো কখনো কমিটির জ্যেষ্ঠ নেতাদের মতামত না নিয়ে কোনো কোনো নেতার একক সিদ্ধান্ত নেওয়া, আবার কোনো নেতার সমিতির কার্যালয়কে ব্যক্তিগত কার্যালয় হিসেবে ব্যবহারসহ নানা অভিযোগ আছে বর্তমান কমিটি নিয়ে। এসব কারণে বর্তমান কমিটির বেশির ভাগ নেতাই নতুন নেতৃত্বের পক্ষে। আগামী নির্বাচনে সভাপতি হিসেবে সমর্থন দিচ্ছেন মৌসুমীকে।

এ তালিকায় ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান ও অমিত হাসান থেকে শুরু করে বর্তমান কমিটিতে থাকা তারকা শিল্পী রিয়াজ, ফেরদৌস, পপি, পূর্ণিমা আছেন। তাঁরা চাইছেন নেতৃত্বের পরিবর্তন। শিল্পী সমিতির আগামী নির্বাচনে শাকিব খান সভাপতি পদে নির্বাচন করবেন বলে শোনা গিয়েছিল। এখন তিনি আর নির্বাচন করবেন না। শাকিব খান বলেন, ‘মৌসুমী নির্বাচন করবেন, ভালো কথা। তাঁর জন্য আমার শুভকামনা। গত নির্বাচনেও আমি তাঁদের সমর্থন দিয়েছিলাম। এবারও আছি। পুরো প্যানেলটা ভালোভাবে যেন হয়। তাহলে শিল্পীদের জন্য ভালো কিছু হবে।