গতকাল রা‌ত্রে সাংবাদিক কাজী মোবারকের সঙ্গে যা ঘটেছে তা দুঃখ জনক। তার বিয়ের অনুষ্ঠানে আমি ছিলাম। এরপর আবার এ ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনা শুনে আমার খারাপ লেগেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপি এ বিষয়টি জানেন। আমি এ বিষয়টি তাদের সঙ্গে মনিটর করবো ব‌লে জা‌নি‌য়ে‌ছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  

‌তিনি ব‌লেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকিৎসার জন্য সিংগাপুর গেছেন, তিনি ফিরে আসুক৷ আমি পুলিশের আইজির সাথে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবো।  যাতে সম্মান জনক সুরাহ হয়। 

রবিবার (৬ অক্টোবর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ ( আইইবি) মিলনায়তনে ' কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম' শীর্ষক বিভাগীয় কর্মশালায় শেষ সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে  তিনি এসব কথা বলেন।  

দুর্নীতি-দুর্বৃত্তায়নের চক্র আমরা ভেঙে দিতে আমরা বদ্ধপরিকর। টার্গেট এচিভ না হওয়া পর্যন্ত শুদ্ধি  অভিযান চলবে। দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়নের সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।কেউই পার পাবে না।দুর্নীতি-দুর্বৃত্তায়নের চক্র ভেঙে না দেয়া পর্যন্ত শুদ্ধি অভিযান চলবে।

কাদের বলেন,  আপনার ( সাংবাদিক)  যাদের সন্দেহ করেছেন, এরেস্ট  হয়ে‌ছে।  সামনে আরও এরেস্ট হবে। এটা কোনো ব্যক্তি, দল বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নয়, যেই অপরাধী তাকে গ্রেফতার করা হবে, যেই অপরাধী তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। এটা গভমেন্টের ইচ্ছা।  গভমেন্ট এ ব্যপারে সংকল্প বদ্ধ।এ লক্ষকে সামনে রেখেই এই শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে।

'ভারতের সঙ্গে অসাংবিধানিক চুক্তি আড়াল করতেই সম্রাটকে গ্রেফতারের নাটক করছে সরকার' বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এই বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন,  নেতিবাচক নোংরা রাজনীতি। নোংরা রাজনীতির কারণে বিএনপি ক্রমেই সংকুচিত হচ্ছে। ক্রমেই তারা জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে। রংপুরে তো ভাবসাব দেখে মনে হয়  বিশাল জয় তারা পেয়ে যাবেন।  এত জনপ্রিয় দল আপনারা নির্বাচনে অংশ নিলেন, আওয়ামী লীগ তো নেয়নি।  এত জনপ্রিয় দল আপনারা নির্বাচনে অংশ নেয়ায় পর ভোটার উপস্থিতি কেনো কম হলো কেনো,  মির্জা ফখরুল সাহেব জবাব দিবেন কি।  

তিনি বলেন,  সাতটা সমঝোতা স্মারক হয়েছে।  তিনটা প্রজেক্টের উদ্বোধন হয়েছে। কোথায় কোন লাইনে,  কোন অংশে অসাংবিধানিক কিছু আছে,  অগণতান্ত্রিক কিছু আছে এটা তথ্য -প্রমাণ সহ মির্জা ফখরুল সাহেব আপনাকে  দেখাতে হবে। অন্ধকারে ঢিল ছুড়বেন না।  

সেতুমন্ত্রী বলেন, আগে বলতেন দেশ বিক্রি হয়ে গেছে,  শেখ হাসিনা ভারতে গেলেই দেশ বিক্রি হয়ে গেছে।  এখন শুরু করেছেন সংবিধান লঙ্ঘন হয়েছে।  চুক্তি করলে আগে বলতেন গোলামীর চুক্তি হয়েছে।  অসংবিধানিক। মেমোরেন্ডাম কোনো চুক্তি নয়। দীর্ঘ দিন ক্ষমতায় না থাকায় এটাও ভুলে গেছে। মেমোরেন্ডাম ওফ আন্ডারস্ট্যান্ডিং কোনো লিখিত চুক্তি নয়। মেমোরেন্ডাম অফ আন্ডারস্ট্যান্ডিং চুক্তি বলে,  অসাংবিধানিক চুক্তি। এখানে সংবিধান কোথায় লঙ্ঘন হয়েছে,  গণতন্ত্রের সূচিতা কোথায় নষ্ট হয়েছে মির্জা ফখরুল এই প্রশ্নের জবাব দেবেন কি? 

শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু কন্যা।  তিনি দেশের স্বার্থ বিকিয়ে দিয়ে কারো সাথে বন্ধুত্ব করে না বলেও যোগ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।  

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপকমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. হোসেন মনসুরের সভাপতিত্বে কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন  আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ,  ছাত্রলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়,  ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যসহ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদকগণ।