ঢাবি প্রতিনিধি: বিশ হাজার টাকা জরিমানায় ফলোন্নয়ন পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন ডাকসু এজিএস ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

এজন্য তাকে আগামী ৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করতে বলা হয়েছে। আইন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. নাইমা হক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের তৃতীয় বর্ষ এলএলবি (সম্মান) কোর্স ফাইনাল পরীক্ষায় ৩০১ ও ৩০২ নং কোর্সে ‘এফ’ গ্রেডপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী মো. সাদ্দাম হোসেনের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, ডিনস কমিটির সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি কোর্সে ১০ হাজার টাকা জরিমান প্রদান সাপেক্ষে নিজ খরচে উল্লেখিত দুটি কোর্সের ফলোন্নয়ন পরীক্ষার অনুমতি দেওয়া হয়।

উল্লেখিত ৩০১ ও ৩০২ নং কোর্সের বিশেষ ফলোন্নয়ন পরীক্ষা আগামী ৮ সেপ্টেম্বর ও ১১ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। তথ্যমতে, নিয়ম অনুযায়ী আট বছরের মধ্যে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করার কথা থাকলেও সাত বছরেও অনার্সের গণ্ডি পার হতে পারেননি সাদ্দাম।

ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ২০১১-১২ সেশনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ভর্তি হন। প্রথম বর্ষ উত্তীর্ণ হতে তিনি তিন বছর সময় নেন। অর্থাৎ ২০১১, ২০১২, ২০১৩ এবং ২০১৪ সালের প্রথম বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষায় তিনি অকৃতকার্য থাকেন। চতুর্থবারের প্রচেষ্টায় ২০১৫ সালে প্রথম বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে সাদ্দাম হোসেন প্রথম বর্ষ উত্তীর্ণ হন। ২০১৬ সালের দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষায় তিনি পাস করতে পারেননি। ২০১৭ সালে দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়ে ২০১৮ সালে তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ করেন। কিন্তু তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা যেটা গত জানুয়ারি মাসের ১৪ তারিখে শুরু হয়েছিল সেই পরীক্ষায় তিনি একাধিক কোর্সে অকৃতকার্য হয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো: আখতারুজ্জামান বলেন, ডিনস কমিটি তাকে (সাদ্দাম) সাপ্লিমেন্টারি সুযোগ দিয়েছে। এখানে ভিসির হাত নেই। ভিসির অনুমতি ছাড়া ডিনস কমিটি ব্যতিক্রমী বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে কিনা জানতে চাইলে ভিসি বলেন, সাধারণ নিয়মের ব্যত্যয় এটা। আর এ ক্ষেত্রে ডিনরা মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।